কলেজ শিক্ষিকা মৃ'ত্যুর ঘটনায় স্বামী মামুনকে আ'দালতে প্রেরণ

নাটোরে শিক্ষিকা খায়রুন নাহারের মৃ'ত্যুর ঘটনায় আ'ট'ক স্বামী মামুন হোসেনকে আ'দালতে প্রেরণ করা হয়েছে। সোমবার (১৫ আগস্ট) দুপুর ১টার দিকে তাকে আ'দালতে পাঠানো হয়।

সদর থা'নার ভা'রপ্রাপ্ত কর্মক'র্তা নাসিম আহম্মেদ জানান, নাটোরের গুরুদাসপুরের খুবজীপুর এম হক ডিগ্রি কলেজের সহকারী অধ্যাপক খাইরুন নাহার ভালবেসে শহরের নবাব সিরাজ উদ-দৌলা সরকারি কলেজের ডিগ্রি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র মামুন হোসেনকে বিয়ে করেন। বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাই'রাল হয়। তারা দুজন শহরের বলারিপাড়ায় একটি বাসায় ভাড়া থাকতেন। এরই এক পর্যায়ে রোববার সকালে সেই ভাড়া বাসা থেকে খাইরুন নাহারের ম'রদেহ উ'দ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য স্বামী মামুন হোসেনকে পু'লিশ আ'ট'ক করে থা'নায় নিয়ে যায়।

রোববার দুপুরে সিআইডির সুরতহালের পর ম'রদেহ ময়নাত'দন্তের জন্য সদর হাসপাতাল ম'র্গে নেয়া হয়। ময়নাত'দন্ত শেষে ম'রদেহ তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। পরে রাত ৮টার দিকে গুরুদাসপুর উপজে'লার স্থানীয় আবু বকর সিদ্দিকী' কওমী মাদ্রাসা মাঠে জানাযা শেষে খামা'র নাচকৈড় কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন হয়। এ ঘটনায় খাইরুন নাহারের চাচাতো ভাই সাবের উদ্দিন রোববার রাতে একটি অ'পমৃ'ত্যু মা'মলা দায়ের করেন।

ওসি আরও জানান, মামুন হোসেনকে কোর্ট হাজতে রাখা হয়েছে। বিকাল ৫টার দিকে তাকে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. মোসলেম উদ্দীনের আ'দালতে তোলা হবে।

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!