‘অনিচ্ছাকৃতভাবে জান্নাতের স্থলে জাহান্নাম বলে ফেলেছি’

জাতীয় শোক দিবসের আলোচনায় দেয়া বক্তব্যের একটি অংশ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাই'রাল হওয়ায় সমালোচনার মুখে পড়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন। যদিও এ ঘটনায় প্রতিমন্ত্রী তার ভুল স্বীকার করে বলেছেন, `এটা স্লিপ অব টাঙ।’ পরক্ষণেই দুঃখপ্রকাশ করে সে বক্তব্য সংশোধনও করেন মন্ত্রী।
এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য থা'নায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন বলেও জানান প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী।

সোমবার (১৫ আগস্ট) বিকেলে কুড়িগ্রামের রাজীবপুর উপজে'লা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের অনুষ্ঠানে দেয়া বক্তব্যের এক পর্যায়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আম'রা মন থেকে তার জন্য দোয়া করবো, বঙ্গবন্ধুকে আল্লাহ যেন জাহান্নামের ভালো জায়গায় স্থান করে দেয়।’

তবে প্রতিমন্ত্রীর দাবি, ভুলবশত তার মুখ থেকে এমন বাক্য বের হয়েছিল। তিনি তৎক্ষণাৎ তা বুঝতে পেরে দুঃখপ্রকাশ এবং বক্তব্য সংশোধন করে বঙ্গবন্ধুকে জান্নাত দানের দোয়া করেছেন।

যোগাযোগ করা হলে প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন বলেন, ‘ওটা স্লিপ অব টাঙ। আমি আজ তিন উপজে'লায় শোক দিবসের অনুষ্ঠানে বক্তব্য দিয়েছি। ক্লান্তি ছিল, অনিচ্ছাকৃতভাবে জান্নাত শব্দের স্থলে জাহান্নাম বলে ফেলেছি। সঙ্গে সঙ্গে সরি বলে বক্তব্য ঠিক করেছি। বিষয়টি নিয়ে বি'ভ্রান্তি সৃষ্টির সুযোগ নেই।’

এ নিয়ে কোনো লিখিত সংশোধনী দেবেন কি না সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘সংশোধনী দেয়ার প্রয়োজন নেই। আমি সঙ্গে সঙ্গে সরি বলে বক্তব্য সংশোধন করেছি।’

অনুষ্ঠানে উপস্থিত নেতাকর্মীরা বলছেন, মন্ত্রী ভুলবশত মুখ ফসকে জাহান্নাম বললেও তাৎক্ষণিক দুঃখপ্রকাশ করে তা সংশোধন করে বক্তব্য ঠিক করেছেন। কিন্তু একটি পক্ষ তার বক্তব্যের ভুল অংশটুকু কে'টে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বি'ভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। পুরো ভিডিও প্রকাশ করলে বিষয়টি পরিষ্কার হতো।

এ বিষয়ে রাজীবপুর উপজে'লা আওয়ামী লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই সরকার বলেন, বিষয়টি আসলেই স্লিপ অফ টাঙ হয়েছে। তিনি সঙ্গে সঙ্গেই সংশোধিত বক্তব্য দিয়েছেন।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন কুড়িগ্রাম-৪ আসনের (রৌমা'রী-রাজীবপুর ও চিলমা'রী) সংসদ সদস্য। পাশাপাশি রৌমা'রী উপজে'লা আওয়ামী লীগের সভাপতিও তিনি।

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!