স্বামীর হাতে ধ'রা, পর'কী'য়া প্রে'মিকের সঙ্গে বিয়ে

মোবাইল ফোনে পর'কী'য়া প্রে'মের স'ম্পর্ক। পরে প্রে'মিকার সঙ্গে দেখা করতে এসে বিয়ের পিঁড়িতে বসতে হয়েছে রাজিব হোসেন (২৭) নামের এক যুবককে। বৃহস্পতিবার(১৮ আগষ্ট) ঘটনাটি জানাজানি হয়। বুধবার (১৭ আগস্ট) পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজে'লার পার-ভাঙ্গুড়া ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের চরপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

প্রে'মিক রাজিব চরপাড়া গ্রামের দোলাল প্রামানিকের ছে'লে। আর প্রে'মিকা ওই গ্রামের হেলাল প্রামানিকের স্ত্রী' ও দুই সন্তানের জননী। স্থানীয়রা জানান, বুধবার (১৭ আগস্ট) সকালে অ'ভিযু'ক্ত গৃহবধূ (৩৫) বাড়িতে কেউ না থাকায় প্রে'মিককে ডেকে নেন। এর মধ্যে গৃহবধূর স্বামী বাড়িতে এসে তাদের আ'পত্তিকর অবস্থায় পেয়ে আ'ট'কে রাখেন। খবর পেয়ে ইউপি সদস্য শফিকুল ইস'লাম দুজনকে ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে যান।

সেখানে সালিশী বৈঠকে ওই গৃহবধূ বলেন, রাজিবের সঙ্গে তার চার বছর আগে পরিচয় হয়। কথাবার্তা বলার এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রে'মের স'ম্পর্ক গড়ে ওঠে। রাজিব তাকে বিয়ে করবেন আশ্বা'স দিয়ে ধ'র্ষণ করেন। এর পর থেকে মাঝে মাঝেই তিনি তার (গৃহবধূর) বাড়িতে আসতেন। এরপর সেখানেই গৃহবধূকে দিয়ে তার আগের স্বামীকে ডিভোর্স দিয়ে পর'কী'য়া প্রে'মিক রাজীবের সঙ্গে বিয়ে দেওয়া হয়।

ঘটনা নিশ্চিত করে ইউপি সদস্য শফিকুল ইস'লাম বলেন, ৫ লাখ টাকা কাবিনে বিয়ে দেওয়া হয়েছে।

ভাঙ্গুড়া থা'নার ভা'রপ্রাপ্ত কর্মক'র্তা (ওসি) ওসি মুঃ ফয়সাল বিন আহসান শুক্রবার (১৯ আগষ্ট) বলেন, সংবাদ পাওয়ার পর তিনি ঘটনাস্থলে পু'লিশ পাঠিয়েছিলেন। কিন্তু গৃহবধুর কোন অ'ভিযোগ না থাকায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া সম্ভব হয়নি।

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!