বউভাতে মাংসের টুকরা ছোট হওয়ায় ৫ বোতল ম'দসহ ও ২ হাজার টাকা জ'রিমানা

এবার চুয়াডাঙ্গার দর্শনায় বউভাত অনুষ্ঠানে মাংসের টুকরা ছোট দেওয়ায় সালিস বৈঠকে ৫ বোতল ম'দ ও ২ হাজার টাকা জ'রিমানা করা হয়েছে হরিজন (বাঁশফোড়) সম্প্রদায়ের এক সদস্যকে। সালিসের নামে প্রহসনে অ'ভিযু'ক্তদের শা'স্তির দাবিতে বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অ'ভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগীর ছে'লে। অ'ভিযোগ দেওয়ার পর গতকাল বৃহস্পতিবার ১৮ আগস্ট রাতে বিষয়টি জানাজানি হয়। বর শ্রী চন্দন বাবু দর্শনা পৌর এলাকার দক্ষিণ চাঁদপুর হল্ট স্টেশনপাড়ার শ্রী রামু বাঁশফোড়ের ছে'লে।

এদিকে ঘটনার বর্ণনা দিয়ে শ্রী চন্দন বাবু বলেন, গত ১২ আগস্ট শুক্রবার খুলনার খালিশপুরে ক্রিসেন্ট জুটমিলস এলাকার হরিজন পল্লীর গংগা বাঁশফোড়ের মেয়ের সঙ্গে আমা'র বিয়ে হয়। আনুষ্ঠানিকভাবে বরযাত্রায় নেওয়া হয় হরিজন সম্প্রদায়ের শতাধিক সদস্যকে। পরদিন শনিবার সন্ধ্যায় আমা'র বাড়িতে বউভাত অনুষ্ঠানের আয়োজন করি। সেখানে খাসির মাংসের টুকরার পরিমাণ তুলনামূলক ছোট হওয়ায় দর্শনা কেরুজ আমতলা হরিজন সম্প্রদায়ের সদস্যরা আ'পত্তি তোলেন। এ সময় আমা'র বাবা রামু বাঁশফোড় দুঃখ প্রকাশ করে ইচ্ছামতো খাওয়ার জন্য তাদের বলেন।

এতেও ক্ষান্ত হয়নি কেরুজ আমতলা হরিজন সম্প্রদায়ের সদস্যরা। তারা খাওয়া-দাওয়া না করে চলে যান। গত ১৬ আগস্ট মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আমতলা হরিজন পল্লীতে পঞ্চায়েত বৈঠকে ডা'কা হয় আমা'র বাবা রামু বাঁশফোড়কে। জীতেন বাঁশফোড়ের নেতৃত্বে পঞ্চায়েত বসানো হয়। পঞ্চায়েতের মিন্টু বাঁশফোড়, রাজু বাঁশফোড়, আকবার বাঁশফোড়, রংলাল বাঁশফোড় ও বাবু লাল বাঁশফোড় সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত নেন বউভাত অনুষ্ঠানে মাংসের টুকরা ছোট হওয়ার অ'প'রাধে রামু বাঁশফোড়কে ২ হাজার টাকা জ'রিমানা ও ৫ বোতল কেরুজ বাংলা ম'দ দিতে হবে।

তিনি আরও জানান, মানুষ তার আয় অনুযায়ী ব্যয় করবে এটাই স্বাভাবিক। ৫ বোতল ম'দ ও জ'রিমানার টাকা পরিশোধ না করায় তারা আমাদের একঘরে করে দেওয়ার হু'মকি-ধমকি দিচ্ছে। তাই তাদের বিচারের দাবিতে জে'লা প্রশাসক, উপজে'লা নির্বাহী অফিসার ও পু'লিশ সুপারের কাছে অ'ভিযোগ দিয়েছি।

এদিকে বাঁশফোড় সম্প্রদায়ের দর্শনার সমাজ প্রধান মিন্টু বাঁশফোড় জানিয়েছেন, আমাদের সম্প্রদায়ের কিছু রীতিনীতি আছে। সেই অনুযায়ী ওই শা'স্তি দেওয়া হয়েছে। আমাদের নিয়ম অনুযায়ী প্রতিবেশীদের উপস্থিতিতে এক কেজি মাংস ১০ টুকরা করতে হবে। তারা তা না মেনে ছোট ছোট করেছে। এর আগেও তার মে'য়ের বিয়েতে ওই নিয়ম না মানায় ১০ বোতল ম'দ ও ৫ হাজার টাকা জ'রিমানা করা হয়েছিল। তারা এখনেও বিচার না মেনে প্রশাসন কাছে বিচার দিচ্ছে।

এ বিষয়ে জে'লা প্রশাসক মোহাম্ম'দ আমিনুল ইস'লাম খান জানান, ওই ঘটনায় একটি লিখিত অ'ভিযোগ দিয়েছেন শ্রী চন্দন বাবু। বিষয়টি ত'দন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!