আমা'র স্বামীকে মে'রে ফেলার পরেও পু'লিশ ৫ লাখ টাকা চাইছে: সুমনের স্ত্রী' জান্নাত

‘আমা'র স্বামীকে গতকাল (শুক্রবার) রাতে পু'লিশ মে’রে ফেলেছে। কিন্তু আজ সকালেও আমা'র কাছে পাঁচ লাখ টাকা দা’বি করেছে। আমা'র স্বামী ইউনিলিভা'র কোম্পানির পিওরইট ওয়াটার ফিল্টারের ডেলিভা'রির ভ্যা’নচালক ছিল।

আম'রা কী'ভাবে পাঁচ লাখ টাকা দিব? অথচ অফিসের ম্যানেজার মাসুম পাঁচ লাখ টাকা দা’বি করে। সে বলেছে, টাকা ছাড়া পু'লিশ কোনো কিছু করবে না। টাকা দিলেই তাকে ছে’ড়ে দিবে।’ এভাবেই কা’ন্না করে বলছিলেন স্ত্রী' জান্নাত।

ঢাকা মহানগর (ডিএমপি) পু'লিশের তেজগাঁও বিভাগের হাতিরঝিল থা'না হেফাজতে আসা’মির মৃ'ত্যু’র ঘটনায় এরই মধ্যে দুই পু'লিশ সদস্যকে সাম’য়িক বরখা’স্ত করা হয়েছে। দায়িত্বে অবহে’লার অ'ভি’যোগ আনা হয়েছে তাঁদের বি’রু’দ্ধে। জান্নাত আরও বলেন, ‘আম'রা থাকি রামপুরা থা'না এলাকায়।

তার (স্বামী) অফিসও রামপুরায়। তাকে গ্রে’প্তার করলে রামপুরা থা'না করবে। হাতিরঝিল থা'নায় তার বি’রু’দ্ধে কোনো মা’মলা নেই। তারা কেন আ’ট'ক করবে? আমা'র স্বামীকে ফের’ত চাই।’ এই বলেই বুক চা’পড়ে কাঁ’দতে থাকেন সুমনের স্ত্রী' জান্নাত। হাতিরঝিল থা'না সূত্রে জানা গেছে, গত ১৩ আগস্ট ৫৩ লাখ টাকা আ’ত্মসা’ৎ এবং প্রমাণ লো’পাট করতে একই প্রতিষ্ঠানের সিসিটিভি ক্যা’মেরার হার্ডডিস্ক চু’রির অ'ভি’যোগে সুমনের বি’রু’দ্ধে মাম’লা করা হয়।

মাম’লা'টির ত'দন্ত করছেন হাতিরঝিল থা'নার উপপরিদর্শক (এসআই) আদনান বীন আজাদ। গত ১৯ আগস্ট তিনিই সুমনকে বাসা থেকে আ’ট'ক করেন। এদিকে সুমনের মৃ’ত্যুর খবর পাওয়ার পর থেকে হাতিরঝিল থা'নার সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষো’ভ করছেন স্বজনেরা।

বিকেল ৫টার দিকে সোহরাওয়ার্দী হাসপাতা'লের ম’র্গে সুমনের ম’রদেহে’র ময়নাত’দন্ত সম্পন্ন করা হয়। রাত ৮টার দিকেও হাতিরঝিল থা'নার সামনে স্বজনদের অবস্থান করতে দেখা যায়। সন্তান হারিয়ে থা'নার সামনে আহাজারি করতে দেখা যায় সুমনের মা আ'মেনা আক্তারকে।

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!