টিকট'কে সবাই আমাকে ভালোবাসে, কিন্তু সময় দিতে পারছি না: দীঘি

সিনেপর্দায় প্রার্থনা ফারদিন দীঘি যতটা না জনপ্রিয়, তার চেয়ে ঢের জনপ্রিয় অন্তর্জালে। ফেসবুক, ইউটিউবের বাইরে টিকট'কে আছে তাঁর বিশাল ভক্তকুল।

কিন্তু চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট অনেকেই মনে করেন, টিকট'কের কারণে ইমেজ বা ভাবমূর্তি খা'রাপ হচ্ছে এই চিত্রনায়িকার। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় আ'লোচিত ‘পরাণ’ সিনেমা'র বিশেষ প্রদর্শনী অনুষ্ঠানে এই প্রশ্নের মুখোমুখি হয়েছেন দীঘি।

টিকট'ক করা প্রসঙ্গে প্রার্থনা ফারদিন দীঘির ভাষ্য, টিকট'ক আমি একা করি না। নায়িকাদের মধ্যে অনেকেই করে। আমি জানি না তাদের কেন এই প্রশ্ন করা হয় না। টিকট'ক করছেন দেখে আপনার ইমেজ খা'রাপ হতে পারে বা কথা হচ্ছে, কথাটা আমাকে নিয়ে বেশি হয়। সবসময় টিকট'ক করার সময় পাই না। হাতে এত অঢেল সময় থাকে না যে টিকট'ক করার জন্য রেডি হব। যখন আম'রা ফ্রি থাকি, একটা কাজ করছি তখন ১৫ সেকেন্ড করা যায়।

টিকট'ক থেকে ধীরে ধীরে সরে আসছেন জানিয়ে দীঘি বলেন, যারা আমাকে ফলো করে তারা জানে আমা'র হাতে আসলে ওই সময়টা নেই। পড়াশোনা, এসব কাজ নিয়ে আসলে সময় এতটাও পাওয়া যায় না। আমি যেহেতু জিনিসটা সময় দিতে পারছি না, জিনিসটা থেকে বের হয়ে আসছি।

তবে দীঘি জানিয়েছেন টিকট'কে সবাই তাকে ভালোবাসেন। স্বীকার করেছেন এই অ্যাপের জন্য ফলোয়ারও বেড়েছে তার। দীঘি বলছিলেন, ‘টিকট'কে আমা'র জনপ্রিয়তা বেড়েছে না কমেছে, আমি জানি না। টিকট'কে আমাকে মানুষ অনেক সাপোর্ট দিয়েছে, পছন্দ করেছে; যার জন্য এক সময় ঘন ঘন বা অনবরত করা হতো… আমা'র ফলোয়ার এ জন্যই বেড়েছে। কিন্তু সবাই আমাকে ভালোবাসে।’

রায়হান রাফী পরিচালিত পরাণ ছবি দেখে দীঘি তার অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে বলেন, বাংলা সিনেমা'র টিকেট পাওয়া যাচ্ছে না এটা সত্যি অনেক আনন্দের। বিশেষ করে পরাণের সঙ্গে আরো দুটি ইংলিশ ছবি চলছে। সেগুলোর চেয়ে পরাণ বেশি দেখছে এটা একজন দেশিয় শিল্পী হিসেবে আমা'র কাছে ভীষণ শান্তির। তাছাড়া সবখানে হাউজফুল যাচ্ছে এটা শুনে খুশি হচ্ছি। ‘পরাণ’র স্ক্রিন-প্লে ও সকলের অ'ভিনয় আমাকে মুগ্ধ করেছে।

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!