১ কেজি আটা চু'রির অ'পবাদে আত্মহ'ত্যা করেন মন্দিরের সেবায়েত

মন্দির থেকে সামান্য কিছু ফল ও আটা বাড়িতে নেয়ায় অ'পমাণ করা হয় রাজধানীর মিরপুরের কেন্দ্রীয় মন্দিরের সেবায়েত পরিক্ষিত দাশকে। অ'পমান সহ্য করতে না পেরে আত্মহ'ত্যা করেছেন তিনি।

এ ঘটনায় আত্মহ'ত্যার প্ররোচণার মা'মলায় মন্দিরের সভাপতিসহ তিনজনকে গ্রে'ফতার করেছে গোয়েন্দা পু'লিশ (ডিবি)।

কোনো স্বর্ণালংকার কিংবা ক'ষ্টিপাথর নয়, সামান্য কিছু ফল আর এক কেজি আটা মন্দির থেকে বাড়িতে নেয়ার অ'ভিযোগে চরম অ'পমান করা হয় এ সেবায়েতকে। অ'পমান সইতে না পেরে আত্মহ'ত্যা করেন ৬৫ বছর বয়সী সেবায়েত পরিক্ষিত দাশ। তিনি মিরপুর ১৪ নম্বরের কেন্দ্রীয় মন্দিরের সেবায়েত হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন দীর্ঘ এক যুগ ধরে।

মন্দিরের সিসিটিভির ফুটেজ বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, গত ১৬ আগস্ট রাত ১১ টা ৫০ মিনিটে ব্যাগ নিয়ে বের হয়ে যাওয়ার সময় তাকে বাধা দেন সুমন শাহা নামে একজন। তিনি মন্দির কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক বলে জানা গেছে।

ব্যাগ চেক করে পাওয়া যায় সামান্য কিছু ফল আর এক কেজি আটা। মন্দির কমিটি চু'রির অ'পবাদ দেয় পরিক্ষিত দাশকে। কমিটির সভাপতি, সাংগঠনিক সম্পাদক এবং দফতর সম্পাদকের পায়ে ধরে ক্ষমা চাইতেও দেখা যায় এ সেবায়েতকে। তবুও মন গলেনি মন্দির কমিটির সদস্যদের। তাকে চরম অ'পমান করা হয়। পরদিন সকালে মন্দিরের পেছনে সিঁড়ির রেলিংয়ের সঙ্গে ফাঁ'স দেয়া অবস্থায় উ'দ্ধার করা হয় সেবায়েতের ম'রদেহ। আত্মহ'ত্যার প্ররোচণার মা'মলা করেন সেবায়েতের ছে'লে ভক্ত দাশ।

ছে'লের করা মা'মলায় গোয়েন্দা পু'লিশ গ্রে'ফতার করেছে মন্দির কমিটির সেই তিন সদস্যকে।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পু'লিশের অ'তিরিক্ত কমিশনার মোহাম্ম'দ হারুন অর রশিদ বলেন, এ ঘটনার পেছনে অন্য কোনো বিষয় কিংবা আর কেউ জ'ড়িত আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!