চিরকুটি লিখে ব্রাক ছা'ত্রীর আত্মহ'ত্যার নেপথ্যের কারণ স্বীকার করলেন বাবা

চিরকুটে বাবাকে নিয়ে অ'ভিযোগ তুলে রাজধানীর দক্ষিণখানে ১০তলা ভবনের ছাদ থেকে লাফিয়ে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সানজানা মোসাদ্দিকার (২১) আত্মহ'ত্যার ঘটনায় তার বাবা শাহীন আলমকে গ্রে'ফতার করেছে রেব। এ ঘটনায় অ'ভিযু'ক্ত বাবা স্বীকার করেছেন, মে'য়ের আত্মহ'ত্যার নেপথ্যের কারণ।

পু'লিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি জানিয়েছেন, সানজানার পড়াশুনার খরচ বন্ধ করা, মাকে তালাক দিয়ে তার বাবা দ্বিতীয় বিয়ে করা ও গৃহকর্মীর উপর বাবার চালানোর অশোভন আচরণ মে'য়েকে আত্মহ'ত্যায় প্ররোচিত করেছে। চিরকুটে এই অ'ভিযোগুলো তুলেই সানজানা আত্মহ'ত্যা করেছিলেন।

বুধবার (৩১ আগস্ট) বিকেলে ময়মনসিংহ জে'লার গফরগাঁও পৌরসভা থেকে তাকে গ্রে'ফতার করা হয়। এ ঘটনার পর থেকে বাবা শাহীন পলাতক ছিলেন। র‌্যা'­ব-১ এর সহকারী মিডিয়া অফিসার সহকারী পু'লিশ সুপার নোমান আহম'দ।

তিনি জানান, তিনি তার মে'য়ে সানজানাকে কোনো পড়ালেখার খরচ দিতেন না। এছাড়াও তার মাকে তালাক দিয়ে দ্বিতীয় বিয়ে করেন। পাশাপাশি বাসার কাজের মে'য়ের সাথে অশোভন আচরণ করছিলেন। এসব মেনে নিতে পারেনি তারে মে'য়ে। এসব ঘটনা সানাজানাকে আত্মহ'ত্যায় প্ররোচিত করে। ফলে সানজানা মৃ'ত্যুর জন্য তার বাবা দায়ী করে একটি চিরকুটে লিখে যান, ‘একটা ঘরে পশুর সাথে থাকা যায়, কিন্তু অমানুষের সাথে না। একজন অ'ত্যাচারী রেপিষ্ট যে কাজের মে'য়েকেও ছাড়ে নাই। আমি তার করুন ভাগ্যের সূচনা।’

গত ২৭ আগস্ট দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থী সানজানা (২১) নিজ বাসার ১০ তলার ছাদ থেকে লাফিয়ে পড়ে আত্মহ'ত্যা করেন। পরে এ ঘটনায় তার মা উম্মে সালমা ওরফে মনি বাদী হয়ে দক্ষিণখান থা'নায় আত্মহ'ত্যার প্র'রোচনার অ'ভিযোগ তুলে একটি মা'মলা করেন।

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!