আসন্ন শীতে বাংলাদেশে করো'নার বিস্তার রোধে প্রধানমন্ত্রীর দৃঢ় আশাবাদ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আসন্ন শীতে বাংলাদেশে করো'নাভাই'রাস (কোভিড-১৯) সংক্রমনের আরও বিস্তার রোধ করার বিষয়ে দৃঢ় সংকল্প ব্যক্ত করে এই মহামা'রী চলাকালীন মানবতার সেবা অব্যাহত রাখার জন্য চিকিৎসকদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘আম'রা আশাবাদী যে, আগামী দিনগুলোতেও আম'রা এই রোগের আরো প্রবল বিস্তার রোধ করতে সক্ষম হব।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ রাতে ‘ক্রিটিকাল কেয়ার-২০২০ বিষয়ক প্রথম আন্তর্জাতিক ই-সম্মেলন’ ভা'র্চুয়ালি উদ্বোধনকালে প্রধান অ'তিথির ভাষণে একথা বলেন।

বাংলাদেশ সোসাইটি অব অ্যানেসথেসিওলজিষ্টস (বিএসএ) এই সম্মেলনের আয়োজন করে। আর এমন একটা সময়ে এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে যখন সারা বিশ্বেই করো'নাভাই'রাস মহামা'রীর বি'রুদ্ধে ল'ড়ছে।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমাদের প্রচেষ্টা এবং চিকিৎসক ও স্বাস্থ্য কর্মীদের কঠোর পরিশ্রমই বাংলাদেশে মা'রাত্মক ভাই'রাসের সংক্রমন রোধ করতে পারে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, কোভিড-১৯ জরুরী পরিস্থিতি মোকাবেলায় সরকার জরুরি ভিত্তিতে ২ হাজার চিকিৎসক এবং ৫ হাজার নার্স নিয়োগ দিয়েছে।

তিনি বলেন, ‘এখন পর্যন্ত আম'রা ভাগ্যবান, কেননা এই রোগের সংক্রমণ এবং মৃ'ত্যুর হার উভ'য়ই বাংলাদেশে খুব কম।’
শেখ হাসিনা বলেন, ‘চিকিৎসা একটি মহৎ পেশা এবং একজন অ'সুস্থ মানুষের চিকিৎসা করে তাঁরা মানবতার সেবা করছেন। কাজেই, আপনি যখন ডাক্তার হবেন, আপনার প্রথম এবং প্রধান কাজ হচ্ছে মানবতার সেবা করা। আমি আশা করবো, যে কোনও পরিস্থিতিতেই আপনি আপনার দায়িত্ব ভুলে যাবেন না।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, অ্যানেসথেসিওলজিস্টরা অ'পারেশন থিয়েটার ছাড়াও গুরুতর অ'সুস্থ রোগীদের চিকিৎসার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

তিনি বলেন, অ'স্ত্রোপচারের আগে, চলাকালীন ও পরে এবং সম্পূর্ণ প্রিঅ'পারেটিভ কেয়ার প্রদানে সংশ্লিষ্ট অ্যানেসথেসিওলজি’র গুরুত্ব সর্বত্র বৃদ্ধি পাচ্ছে।